এমপির ছেলে হয়েও যিনি মুক্তোর মতো আলো ছড়াচ্ছেন এই অন্ধকার সমাজে

এমপির ছেলে হয়েও যিনি মুক্তোর মতো আলো ছড়াচ্ছেন এই অন্ধকার সমাজে

এমপির ছেলে মানেই হয়তো বর্তমানে আমাদের চোখে ভেসে ওঠে দোষ না থাকা সত্ত্বেও মোটর বাইকের চালককে মেরে দু-চারটা দাঁত ভেঙে ফেলা আর তার স্ত্রীকে লাঞ্ছিত করা। এতো কিছুর পরেও কিন্তু সবাই নষ্টের কাতারে চলে যায়নি। এখনো এমন কিছু মানুষ আছেন যারা এমপি-মন্ত্রীর ছেলে হয়েও জড়াননি কোনো অমানবিক কর্মে কিংবা মানুষের অকল্যাণে। আর তেমনি এক অনন্য ব্যক্তি হচ্ছেন ফারাজ করিম চৌধুরী ।

তার বাবা ফজলে করিম চৌধুরী বর্তমানে একজন এমপি। একজন এমপি পুত্র হয়েও তিনি ছুটে চলেছেন মানুষের কল্যাণে। পারিবারিক অশান্তি থেকে শুরু করে যেকোনো সমস্যায় নিজেই ছুটে যান মানুষের কাছে। কোনো এক অসহায় মানুষ, টাকার অভাবে ঔষধ কিনতে না পাড়ায় মারা গিয়েছে; এটা জানার পর হাসপাতালের কাছে ঔষধের দোকানে গিয়ে তিনি নিজের ফোন নম্বর দিয়ে এসেছেন এবং সেই দোকানদারকে বলে আসেন, “যদি কোনো মানুষের কাছে ঔষধ কেনার টাকা না থাকে তারা আপনার কাছে আসলে ঔষধ দিয়ে দেবেন, টাকা আমি দিবো”

ঈদের দিন তিনি জানতে পারলেন, তার এলাকায় এক ছেলে নেশা করে তার বাবা-মাকে মারধর করে। ছুটে গেলেন সেখানে আর সেই ছেলেকে ভালো মতো বুঝিয়ে বাবা-মায়ের পা ধরে মাফ চাওয়ানোর পর তিনি বাবা-মায়ের সাথে ছেলেটার ভাঙা বন্ধন ঠিক করে দিয়েছেন।

বিয়ের মাত্র ৫ মাসের মাথায় একটি পরিবার ভেঙে যাচ্ছিলো প্রায় যৌতুকের জন্য। তিনি সেখানেও হাজির; সে বাড়িতে গিয়ে স্বামী-স্ত্রী দুজনকেই সবকিছু মিটমাট করে দিয়েছেন।

আমরা শুনেছি মুক্তোর কথা, আর ফারাজ করিম চৌধুরী সেই মুক্ত, যিনি আলো ছড়িয়ে চলেছেন অন্ধকারে।

 

Leave a Reply